in ,

কঙ্গোতে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ৮ শান্তিরক্ষী নিহত

ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোর পূর্বাঞ্চলে হেলিকপ্টারের সামনে জাতিসংঘের একজন শান্তিরক্ষী। ছবিটি ২০১০ সালের ৩ অক্টোবর তোলা

আন্তর্জাতিক মাধ্যম: মধ্য আফ্রিকার দেশ ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোতে (ডিআর কঙ্গো) হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ৮ সেনা নিহত হয়েছেন। নিহতরা সবাই দেশটিতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত ছিলেন। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) কঙ্গোর পূর্বাঞ্চলে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত ও প্রাণহানির এই ঘটনা ঘটে।

নিহতদের ৬ জনই পাকিস্তানের সেনা কর্মকর্তা এবং বাকি দুইজন রাশিয়া ও সার্বিয়ার শান্তিরক্ষী। জাতিসংঘের বরাত দিয়ে বুধবার (৩০ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

জাতিসংঘ জানিয়েছে, বিদ্রোহীদের সঙ্গে লড়াইয়ের মধ্যে মঙ্গলবার কঙ্গোতে জাতিসংঘের একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়। এতে ওই আট শান্তিরক্ষী নিহত হন। এক বিবৃতিতে সংস্থাটি আরও জানিয়েছে, শান্তিরক্ষীদের মৃতদেহ উদ্ধার করে গোমায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

কঙ্গোতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনটি মনুস্কো নামে পরিচিত। এক বিবৃতিতে মনুস্কো জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৬ জন পাকিস্তানি সেনা কর্মকর্তা এবং রাশিয়া ও সার্বিয়ার একজন করে সেনা কর্মকর্তা রয়েছেন।

এদিকে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের ঘটনায় আটজনের সবাই মারা গেছেন। একইসঙ্গে নিহত পাইলট ও ক্রুদের নামও প্রকাশ করেছে তারা। পাকিস্তান ২০১১ সাল থেকে কঙ্গোতে জাতিসংঘ মিশনে একটি বিমান চলাচল ইউনিট মোতায়েন রেখেছে বলেও জানানো হয়েছে।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর ইন্টার-সার্ভিস পাবলিক রিলেশনস (আইএসপিআর)-এর বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, কঙ্গোতে হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের ঘটনায় প্রাণ হারানো সেনা কর্মকর্তাদের দু’জন মেজর এবং একজন কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা রয়েছেন।

তাদের নাম- লেফটেন্যান্ট কর্নেল আসিফ আলী আওয়ান (পাইলট), মেজর ফাইজান আলী, মেজর মোহাম্মদ সাদ নোমানী (কো পাইলট), নায়েব সুবেদার সামি উল্লাহ খান (ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার), হাবিলদার মোহাম্মদ ইসমাইল (ক্রু চিফ) এবং মোহাম্মদ জামিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

GIPHY App Key not set. Please check settings

রমজানেও নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে থাকবে— প্রধানমন্ত্রী

বিসিএসের ৪০তম ফল প্রকাশ