in , ,

জেলেনস্কিকে হত্যা করতে রুশ ভাড়াটে যোদ্ধারা ইউক্রেনে

আন্তর্জাতিক মাধ্যম: ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও তার প্রধান সহযোগীদের হত্যা করতে রাশিয়ার ভাড়াটে সেনাদের এলিট একটি গ্রুপ আবারও দেশটিতে ঢুকেছে। ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর বরাত দিয়ে সোমবার (২১ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক পোস্ট।

গত রোববার (২০ মার্চ) সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ‘প্রেসিডেন্ট পুতিনের ঘনিষ্ঠ একজন রুশ প্রোপাগান্ডাকারী এবং (ওয়াগনারের) মালিক ইয়েভজেনি প্রিগোজিনের সাথে যুক্ত যোদ্ধাদের আরেকটি দল আজ ইউক্রেনে আসতে শুরু করেছে। ইউক্রেনের রাজনৈতিক ও সামরিক বাহিনীর শীর্ষ নেতাদের হত্যা করাই তাদের প্রধান কাজ।

৪৪ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বরাবরই দাবি করে আসছেন যে, তিনি রাশিয়ার এক নাম্বার টার্গেট এবং তার পরিবার দুই নাম্বারে। এছাড়া চলতি মাসের শুরুতে ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের অন্যতম প্রধান একজন উপদেষ্টা জানিয়েছিলেন যে, এক ডজনেরও বেশিবার হত্যাচেষ্টার হাত থেকে বেঁচে গেছেন জেলেনস্কি।

নিউইয়র্ক পোস্ট বলছে, প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কিকে হত্যায় আগের কিছু প্রচেষ্টার সঙ্গে ‘ওয়াগনার’ যুক্ত ছিল। রুশ প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন ক্রেমলিন-সমর্থিত প্রাইভেট আধা-সামরিক এই বাহিনীটি সারা বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ কিছু নৃশংসতার জন্য অভিযুক্ত। একইসঙ্গে এটি ‘পুতিনের শেফ’ নামে পরিচিত একজন অলিগার্কের মাধ্যমে পরিচালিত হয়।

এদিকে প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রধান গোয়েন্দা বোর্ড অব ডিরেক্টরস’র একটি সতর্কতাকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের পাশাপাশি ভাড়াটে যোদ্ধারা জেলেনস্কির প্রধান উপদেষ্টা অ্যান্ড্রি এরমাক এবং প্রধানমন্ত্রী ডেনিস শ্যামিহালকেও হত্যার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

পোস্টে বলা হয়েছে, পুতিন ব্যক্তিগতভাবে আরেকটি হামলার নির্দেশ দিয়েছেন… (জেলেনস্কিকে হত্যার) আগের সব প্রচেষ্টা ব্যর্থতায় এবং সন্ত্রাসীদের মৃত্যুর মাধ্যমে শেষ হয়েছে। আমাদের রাষ্ট্রের শীর্ষ ব্যক্তিদের হত্যার চেষ্টা দখলদারদের কৌশলের একটি অংশ।

ফক্সে প্রকাশিত ওই পোস্টে জোর দিয়ে আরও বলা হয়েছে, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী, স্পেশাল সার্ভিস এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ক্রেমলিনের পরিকল্পনার কথা ভালো করেই জানে। সামনে ও পেছন থেকে হওয়া যেকোনো ধরনের আগ্রাসন ব্যর্থ করে দিতে আমরা প্রস্তুত। কোনো সন্ত্রাসী হামলাই সফল হবে না।

নিউইয়র্ক পোস্ট বলছে, ক্রেমলিন-সমর্থিত প্রাইভেট আধা-সামরিক বাহিনী ‘ওয়াগনার গ্রুপ’টি লিগা নামেও পরিচিত। ইউক্রেনের সাথে পূর্ববর্তী সংঘর্ষের সময় ২০১৪ সালে এটি প্রথম আবির্ভূত হয় এবং এর ৬ হাজার সদস্য রয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

GIPHY App Key not set. Please check settings

#Maddhayom;

ভারতের বিপক্ষে ১১০ রানে হেরেছে বাংলাদেশ নারী দল

#Maddhayom;

পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক সহিংসতা — প্রাণহানি ১০ জনের