in

ঢাকাকে ১৩০ রানের টার্গেট দিল বরিশাল

ঢাকাকে ১৩০ রানের টার্গেট দিল বরিশাল

মাধ্যম” অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি।

বিপিএল : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের পঞ্চম ম্যাচে মিনিস্টার ঢাকাকে ১৩০ রানের টার্গেট দিল ফরচুন বরিশাল।

আরও পড়ুন:- ঢাকার বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বরিশাল

এর আগে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন মিনিস্টার ঢাকা। আজ সোমবার সাড়ে ১২টায় মিরপুরের শের-ই-বাংলা বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হয়।

মিনিস্টার ঢাকার এটি তৃতীয় ম্যাচ। আসরের প্রথম দুই দিনই দুইটি ম্যাচ খেলে ঢাকা। খুলনা টাইগার্স ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে ম্যাচ দুইটিতেই হেরেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

আরও পড়ুন:- সাকিবদের বিপক্ষেই মাঠে নামবে মাশরাফি

অপরদিকে, বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচ চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে জয় পায় ফরচুন বরিশাল। বরিশাল আজ তিন পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামছে। দলে ফিরছেন নুরুল হাসান সোহান, তাইজুল ইসলাম ও ক্রিস গেইল।

ফরচুন বরিশাল একাদশ :
সাকিব আল হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, সৈকত আলী, তৌহিদ হৃদয়, ক্রিস গেইল, নুরুল হাসান সোহান, ডোয়াইন ব্রাভো, জিয়াউর রহমান, আলজারি জোসেফ, তাইজুল ইসলাম ও শফিকুল ইসলাম।

মিনিস্টার ঢাকা একাদশ :মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ শেহজাদ, নাঈম শেখ, জহুরুল ইসলাম অমি, শুভাগত হোম চৌধুরী, আন্দ্রে রাসেল, ইসুরু উদানা আরাফাত সানি, রুবেল হোসেন ও হাসান মুরাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

GIPHY App Key not set. Please check settings

ঢাকার বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বরিশাল

ঢাকার বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বরিশাল

জয়ের স্বাদ পেল ঢাকা টানা দুই ম্যাচে হার। অনেকটাই বিপর্যস্ত ছিল মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। বিপিএলের একটি জয় ছিল খুবই আকাঙ্ক্ষিত। সোমবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের পঞ্চম ম্যাচে জয় পেয়েছে দলটি। ফরচুন বরিশালকে চার উইকেটে হারিয়ে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে মাহমুদউল্লাহ দল। ক্যারিবীয় মারকুটে অলরাউন্ডার রাসেলের ১৫ বলে ৩১ রানের ঝড়ে সহজেই ১৫ বল হাতে রেখে বরিশালের করা ১২৯ রান টপকে গেছে মিনিস্টার ঢাকা। ১৩০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা মোটেও আশাব্যঞ্জক ছিল না ঢাকার। ইনিংসের ১৭ বলের মধ্যে দলীয় ১০ রানের মাথায় ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। একে একে সাজঘরে ফিরে যান তামিম ইকবাল (০), নাইম শেখ (৫), জহুরুল অমি (০) ও মোহাম্মদ শেহজাদ (৪)। তবে পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার আগেই ঘুরে দাঁড়ায় তারা। নিজের প্রথম দুই ওভারে দুই উইকেট বাঁহাতি পেসার শফিকুল ইসলাম ইনিংসের পঞ্চম ওভারে বিলিয়ে দেন ১৮ রনা। সেখান থেকেই পঞ্চম উইকেটে ঘুরে দাঁড়ানোর রসদ পেয়ে যান মাহমুদউল্লাহ ও শুভাগত হোম। দেশের ক্রিকেটের এ দুই অভিজ্ঞ তারকার জুটিতে আসে ১০.২ ওভারে ৬৯ রান। দুজনের মধ্যে শুভাগতই ছিলেন বেশি সাবলীল। ইনিংসের ১৪তম ওভারে ডোয়াইন ব্রাভোর স্লোয়ারে ক্যাচ আউট হওয়ার আগে ২৫ বলে ২৯ রান করেন শুভাগত। তখন জয়ের পথে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিল ঢাকা। আরো খবর বাকি কাজ সারতে কোনো সমস্যাই হয়নি সাত নম্বরে নামা আন্দ্রে রাসেলের। একপ্রান্ত ধরে রেখে মাহমুদউল্লাহও খেলেন অধিনায়কোচিত ইনিংস। শেষ ৬ ওভারে যখন প্রয়োজন ছিল ৪৭ রান, তখন আলঝারি জোসেফের বোলিংয়ে তিন চার ও এক ছয়ের মারে ১৯ রান নিয়ে নেন রাসেল ও রিয়াদ।

জয়ের স্বাদ পেল ঢাকা