in

নারায়ণগঞ্জ নির্বাচন: নির্বাচন ঘিরে এখন উত্তাপ চলছে: ভোটার জনমতে এগিয়ে আইভী

“মাধ্যম” অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি।

রাত পোহালেই অনুষ্ঠিত হবে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। নির্বাচন ঘিরে এখন উত্তাপ চলছে নারায়ণগঞ্জ সিটি এলাকা জুড়ে। নির্বাচনে ৭ জন মেয়র প্রার্থী থাকলেও মূল আলোচনায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি থেকে অব্যাহতি পাওয়া তৈমুর আলম খন্দকার। এই দুই প্রার্থীর মধ্যেও যোজন যোজন তফাৎ।

নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন স্থানে লোকজনের সঙ্গে কথা বলে এমন ধারণাই পাওয়া গিয়েছে।

ব্যক্তিগত ইমেজ, অদম্য সাহস,পিতার রেখে যাওয়া গৌরবময় অধ্যায়, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অবস্থান, নগরীর উন্নয়ন সর্বোপরি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক সেলিনা হায়াত আইভীকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে বেশ এগিয়ে রেখেছে।

নারায়ণগঞ্জবাসী মনে করেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে সেলিনা হায়াৎ আইভী গত ১৫ বছরে নারায়ণগঞ্জের শক্ত ভিত গড়ে তুলেছেন। তার ব্যক্তিগত ইমেজ, নির্বিশেষে সবার সঙ্গে সমান সখ্যতা গড়ে তোলার কারণে তিনি সবার মধ্যে সমান জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। এর সঙ্গে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক যুক্ত হওয়ায় নির্বাচনে ভালো ফলাফল করবেন এমনটাই মনে করছেন তার অনুসারীরা এবং নগরের বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

শুক্রবার নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্তরে লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের যে পরিবেশ বিরাজ করছে তাতে আগামী রোববারের নির্বাচন সুষ্ঠুভাবেই সম্পন্ন হবে-এমনটাই প্রত্যাশা করছেন নারায়ণগঞ্জবাসী।

রিকশা চালক আমির মুল্লা মনে করেন, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবেই অনুষ্ঠিত হবে। তার মতে, নৌকার অবস্থান অনেক ভালো।

শহীদ মিনার এলাকায় ডিম বিক্রি করেন মোহাম্মদ শাহাদাত। বলছিলেন, নির্বাচনে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ হবে এটাই স্বাভাবিক। একজন আরেকজনকে দোষারোপ করবেন। এটা নির্বাচনে অংশ। তবে নির্বাচনে উত্তাপ আছে, এক তরফা হবে না। নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণভাবে হবে। প্রতিদ্বন্দ্বীতাও হবে।

হকার ইউনূস মিয়া মনে করেন, এবারেও আইডি পাস করার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা হবে। ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম আকাশ বলেন, রাজনীতি করিনা পেটনীতি করি।এখন পর্যন্ত যা বুঝতে পেরেছি তাতে নৌকাই জিতবে। কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, আইভী দুইবার মেয়র ছিল, কাজ করেছে অনেক। আইভী সিটির রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করেছে। তিনি আরও বলেন, তবে তৈমুর হলে খারাপ হবে না।

সংস্কৃতিকর্মী পিন্টু সাহা বলছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সেলিনা হায়াত আইভীর একটা ব্যক্তিগত ইমেজ গড়ে উঠেছে। তার সাহস ত্বকি হত্যার পর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তার কঠোর অবস্থানই হচ্ছে তার মূল পুঁজি। এর সঙ্গে নৌকা প্রতীক। সবমিলিয়ে আইভী শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছেন তিনি।

এ সংস্কৃতিকর্মী মনে করেন, রোববারের নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ এবং সুন্দরভাবে অনুষ্ঠিত হবে। সাধারণ মানুষও ভোট দিতে পারবেন।

অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার লড়ছেন হাতি প্রতীক নিয়ে। প্রথমে তিনি বিএনপির প্রার্থী হলেও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাঝপথে এসে বিএনপির হাইকমান্ড তাকে দলের সকল দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়। ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা। সেখান থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় তাকে।

অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র একটা বড় অংশই তৈমুর আলম খন্দকারের সঙ্গে নেই। এসব কারণে তিনি নির্বাচনী দৌড়ে বেশ পিছিয়ে গেছেন।

নারায়ণগঞ্জ নগর বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান বলছিলেন, নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র বড় অংশই এই নির্বাচনে নীরব রয়েছে। তারা তৈমুর আলম খন্দকার এর পক্ষে কাজ করছে না। আরেকটা অংশ ব্যক্তি আইভীর পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। এসব কারণে তৈমুর বেশ পিছিয়ে গেছেন।

তিনি বলেন বিএনপির সঙ্গে কথা না বলেই প্রার্থী হয়েছেন। তার উপর দল আবার তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। ব্যক্তিগত ইমেজ খুব একটা ভালো নেই।

আনিসুর রহমান বলেন, এবারের নির্বাচনেও আইভী ভালো অবস্থানে রয়েছেন। তার মতে নির্বাচন সুষ্ঠু সুন্দর ভাবে অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে। এখন পর্যন্ত কোনো শঙ্কা দেখা যাচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

GIPHY App Key not set. Please check settings

করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৪৪৭

নাসিক নির্বাচন: বহিরাগতদের প্রবেশ নিষেধ