in ,

পশ্চিমবঙ্গে সতর্কতা: স্কুল-কলেজ বন্ধ, মাস্ক বাধ্যতামূলক

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ভারতে। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে দেড় হাজারের বেশি। মোট করোনা আক্রান্ত এক লাখ ২২ হাজার।

এমন পরিস্থিতিতে করোনার তৃতীয় ঢেউ ঠেকাতে সতর্ক অবস্থানে বিভিন্ন রাজ্য। মহারাষ্ট্রের পর পসচিম্বঙ্গেও আরোপ হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ।

আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ভারতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের এসব বিধিনিষেধ কার্যকর থাকবে। এসময় বন্ধ থাকবে স্কুল, কলেজ। সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ কর্মী উপস্থিত থাকতে পারবেন। তবে কর্মীদের বাড়িতে থেকে কাজ করার ওপরেই জোর দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও সন্ধ্যা সাতটার পর বন্ধ থাকবে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। সপ্তাহে মাত্র ২ দিন দিল্লি ও মুম্বই থেকে কলকাতায় নামতে পারবে বিমান।

লোকাল ট্রেনের অর্ধেক সংখ্যক আসনে চড়তে পারবেন যাত্রীরা। তবে সড়ক ও নৌযানে যাত্রী পরিবহণের সংখ্যা কমছে না।

বিধিনিষেধ চলাকালীন রাত ১০ টা থেকে ভোর ৫ টা থেকে কারফিউ জারি থাকবে। এ সময় শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা বাড়ি থেকে বের হতে পাবেন।

মাস্ক ছাড়া কোনও বাজার বা শপিং মলে প্রবেশ করা যাবে না। বিধিনিষেধ ভঙ্গে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে রাজ্য সরকার।

বিয়েরসহ সব সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সর্বাধিক ৫০ জন উপস্থিত থাকতে পারবেন। আর যেকোন আলোচনাসভায় সর্বাধিক ২০০ জন অতিথি আসতে পারবেন।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, গত কয়েকদিন ধরে রাজ্যে লাগামহীন করোনা সংক্রমণের পর এই সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ৪ হাজার ৫১২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। সংক্রমণের হার ছাড়িয়ে গেছে ১২ শতাংশ।

মাধ্যম ডেস্ক/

Leave a Reply

Your email address will not be published.

GIPHY App Key not set. Please check settings

করোনায় আক্রান্ত মেসি, চিন্তায় ফুটবল বিশ্ব

১৪৪ ধারা কক্সবাজারে