in ,

৯ মের মধ্যে ‘যুদ্ধে সাফল্য চান’ পুতিন

♦আন্তর্জাতিক মাধ্যম: ইউক্রেনে চলছে রুশ সামরিক অভিযান। পশ্চিমাদের দাবি, যুদ্ধক্ষেত্রে লক্ষ্য পূরণে ব্যর্থ হয়েছে রাশিয়া। তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, পরিকল্পনামাফিকই চলছে তাদের সামরিক অভিযান।

যদিও ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ দখলের পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে রাশিয়া। রুশ সেনাদের লক্ষ্য এখন মারিওপোলসহ ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের দোনবাস।

তবে গোয়েন্দা সূত্রের বরাতে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ৯ মে রাশিয়ার বিজয় দিবসকে সামনে রেখে ইউক্রেনে বড় ধরনের সামরিক সফলতা দেখাতে চাইছে দেশটি।

যুক্তরাজ্য বলছে, যুদ্ধক্ষেত্রে যত দিন যাবে তত দ্রুত ও শক্তিশালী হামলার মুখোমুখি হতে হবে ইউক্রেনকে। রুশ বাহিনী এরই মধ্যে দোনবাস থেকে ক্রামাটর্স্কে আক্রমণ করতে পারে। এরই মধ্যে শহরটিতে ব্যাপক মাত্রায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চলছে।
১৯৪৫ সালে নাৎসি জার্মানিকে সোভিয়েত ইউনিয়নের পরাজিত করার বিষয়টিকে স্মরণ করেই ৯ মে বিজয় দিবস পালন করা হয়। ইউক্রেন ও পশ্চিমা বিশ্বের ধারণা, দিনটিকে সামনে রেখেই যুদ্ধকে আরও এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্য স্থির করতে পারেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর ঘোষণা দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর পর থেকেই পশ্চিমাদের বাধা উপেক্ষা করে পূর্ব ইউরোপের দেশটিতে চলছে রুশ সেনাদের সামরিক অভিযান।

ইউক্রেনকে ‘অসামরিকায়ন’ ও ‘নাৎসিমুক্তকরণ’ এবং দোনেৎস্ক ও লুহানস্কের রুশ ভাষাভাষী বাসিন্দাদের রক্ষা করার জন্যই এমন সামরিক পদক্ষেপ বলে দাবি করে আসছে রাশিয়া। ইউক্রেনের পক্ষ থেকে বলা হয়, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে রাশিয়া হামলা চালিয়েছে। দেশটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়ে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

GIPHY App Key not set. Please check settings

প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন — আ.লীগকে কেন হটাতে হবে

৫ হাজার ৯২৯টি নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্ত ৪৫ মৃত্যু নেই